Logo
 বর্ষ ১০ সংখ্যা ২৩ ২২শে কার্তিক, ১৪২৪ ১৬ নভেম্বর, ২০১৭ 
প্রচ্ছদ কাহিনী/প্রতিবেদন
এই সময়/রাজনীতি
ডায়রি/ধারাবাহিক
স্বাস্থ্য
খেলা
প্রতিবেদন
সাহিত্য সংস্কৃতি
বিশ্লেষন
সাক্ষাৎকার
প্রবাসে
দেশজুড়ে
অনুষ্ঠান
ফিচার ও অন্যান্য
নিয়মিত বিভাগ
দেশের বাইরে
প্রতিবেদন
 
http://sadiatec.com/
 জলছবি'র বিস্তারিত সংবাদ
আপ্যায়নের নাম হাঁস পার্টি

জা পা ন

রাহমান মনি

জাপান প্রবাসীদের দ্বারা আয়োজিত যেসব অনুষ্ঠানে আপ্যায়নের ব্যবস্থা থাকে তার মধ্যে ধর্মীয় আয়োজন (ইফতার মাহফিল, পূজা) ছাড়াও মুন্সীগঞ্জ বিক্রমপুর সোসাইটি জাপান কর্তৃক ঈদ পরবর্তী কোরবানির মাংসে আপ্যায়ন বা ঈদ পুনর্মিলনী সর্বজনবিদিত। সম্প্রতি বসন্ত উৎসব, পিঠাপুলি বা পান্তা ইলিশে আপ্যায়নের ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। তবে এগুলো প্রায় সবটারই কোনো না কোনো ব্যানারে এবং কোনো না কোনো উদ্দেশ্যে দর্শক সমাগত বা প্রবাসীদের আকৃষ্ট করার জন্যই আপ্যায়নের ব্যবস্থা রাখা হয়। দলীয় কোনো আয়োজন কিংবা ঘরোয়া কোনো আয়োজনে আপ্যায়নের ব্যবস্থা অবশ্য ভিন্ন কথা।
গত বছর থেকে জাপানে ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনের মাধ্যমে প্রবাসীদের কেবল ভুঁড়িভোজের জন্য একত্রিত করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আর এই ভুঁড়িভোজের নামটিও অভিনব এবং নতুনত্ব রয়েছে বৈ কি। আয়োজনটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘হাঁস পার্টি।’
টোকিওর কিতা সিটি হিগাশি জুজোতে বসবাসরত বাংলাদেশ কমিউনিটির উদ্যমী কিছু যুবক এই হাঁস পার্টির আয়োজন করে আসছে। আর এই ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজনটির জন্য তারা কোনো স্পন্সর না নিয়ে সম্পূর্ণ নিজ উদ্যোগে নিজেরা চাঁদা দিয়ে এবং নিজেরা রেঁধে সকলকে আপ্যায়নের ব্যবস্থা করছেন। তাদের নেই কোনো আবেদন বা নিজেদেরকে পরিচিত করানোর কোনো প্রয়াস। সম্পূর্ণ নিস্বার্থভাবেই, নিরলস পরিশ্রম করেই তারা প্রবাসীদের কিছুটা হলেও ব্যতিক্রমধর্মী বা ভিন্ন ধারায় স্বাদগ্রহণের সুযোগ দিতে পারায় আনন্দেই তারা উদ্বেলিত, কারণ এই আয়োজনে গতানুগতিক কোনো খাবার নয়, ভিন্নধর্মী খাবার পরিবেশন করা হয়। হাঁসের মাংসের সঙ্গে রুটি, মূল খাবারের ম্যানুর সঙ্গে অন্যান্য।
এই আয়োজনটি যারা করে থাকেন এবং যাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা না জানালেই নয় তারা হচ্ছেন নুর খান রনি, আবুল খায়ের (আবুল কালাম আজাদ), তৌহিদুল আলম রিপন, আব্দুল জব্বার, মো. কাওসার খান, ওমর ফারুক, রিপন এবং মোজাহেদুর রহমান জুয়েল প্রমুখ প্রধান ভূমিকা পালন করে থাকেন।
এই ব্যাপারে নুর খান রনি জানান, বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও অনেকে বাড়িতে হাঁসের মাংস খেতে পারেন না। অথচ বাংলাদেশের খাদ্য সংস্কৃতিতে হাঁসের মাংস অনেকটাই জড়িয়ে আছে। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে শীতের সময় হাঁসের মাংস খাওয়া হয়ে থাকে। হাঁসের মাংস রান্না করাটাও সময়সাপেক্ষ এবং একটু ঝামেলাও। তাই আমরা হিগাশি জুজোর যুব সমাজ প্রবাসীদের আয়োজনগুলোর গতানুগতিকতা থেকে একটু আয়োজনের মাধ্যমে প্রবাসীদের কিছুটা হলেও বিনোদন (খাদ্য) এর ব্যবস্থা করে থাকি। আমাদের কোনো উদ্দেশ্য নেই। প্রথম প্রথম সম্পূর্ণ নিজস্ব বন্ধুবান্ধবরা মিলেই করতাম। কিন্তু গত বছর ব্যাপক সাড়া পড়ায় নিয়মিতভাবেই আয়োজন করার পরিকল্পনা করি।
রনি, খায়ের, রিপন, জব্বার, কাওসার, জুয়েল, ওমর ফারুক সবাই একবাক্যেই বলেন, এই যে দল মত, ধর্ম, বর্ণ এবং আঞ্চলিকতা ভেদে সকলেই এসেছেন এতেই আমরা খুশি। সবার মধ্যে ভালো কমিউনিকেশন তৈরি হলেই আমাদের পরিশ্রম সার্থক হবে বলে আমরা মনে করি।
rahmanmoni@gmail.com
Bookmark and Share পিছনে

Warning: require_once(/home/content/s/h/a/shaptahik/html/v2/comments/c_comments.php) [function.require-once]: failed to open stream: No such file or directory in /home/content/26/13292126/html/v2/main/sup_details.php on line 49

Fatal error: require_once() [function.require]: Failed opening required '/home/content/s/h/a/shaptahik/html/v2/comments/c_comments.php' (include_path='.;C:\Program Files\VertrigoServ\Smarty') in /home/content/26/13292126/html/v2/main/sup_details.php on line 49