Logo
 বর্ষ ১০ সংখ্যা ৩২ ২৫শে পৌষ, ১৪২৪ ১৮ জানুয়ারী, ২০১৮ 
প্রচ্ছদ কাহিনী/প্রতিবেদন
এই সময়/রাজনীতি
ডায়রি/ধারাবাহিক
স্বাস্থ্য
খেলা
প্রতিবেদন
সাহিত্য সংস্কৃতি
বিশ্লেষন
সাক্ষাৎকার
প্রবাসে
দেশজুড়ে
অনুষ্ঠান
ফিচার ও অন্যান্য
নিয়মিত বিভাগ
দেশের বাইরে
প্রতিবেদন
 
http://sadiatec.com/
যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে চলছে বিরাট কর্মযজ্ঞ  
মহসিন মিলন, যশোর থেকে

যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে জব ফেয়ারে জমা পড়া সিভির চূড়ান্ত ডাটাবেজ করেছেন কর্তৃপক্ষ। তাদের চলতি সপ্তাহেই অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন নেয়া হবে। রেজিস্ট্রেশন চূড়ান্ত হলেই বরাদ্দ নেয়া কোম্পানির কাছে হস্তান্তর হবে সিভিগুলো। ফলে জানুয়ারিতেই উপযুক্ত প্রার্থীরা নিয়োগ পেতে পারেন বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটির কনসালট্যান্ট মনির হোসেন। গত ৫ অক্টোবর যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের জব ফেয়ারে চাকরি প্রত্যাশীদের ঢল নামে। দূর-দূরান্তের হাজার হাজার আবেদনকারী বায়োডাটা নিয়ে মেলায় হাজির হন।
মেলায় টার্গেটের চেয়ে বেশি মানুষের সমাগম ঘটে। সবাই জব ফেয়ারে প্রবেশ করতে না পারলেও বাইরে রাখা বক্সে তাদের সিভি জমা দেন। বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক ও শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক কর্তৃপক্ষের টার্গেট ছিল ৩/৪ হাজার মানুষ জব ফেয়ারে অংশ নিবে। কিন্তু তাদের টার্গেটের বাঁধ ভেঙে প্রায় ২০ হাজার মানুষ এ জব ফেয়ারে অংশ নেয়। মেলায় ২ লক্ষাধিক সিভি জমা পড়ে। পরে সিভিগুলোই পর্যায়ক্রমে যাচাই-বাছাই করে ডাটাবেজ করেছে হাইটেক পার্ক অথরিটি। এ মাসের শেষের দিকে বাছাইকৃত চাকরি প্রত্যাশীদের মাঝে রেজিস্ট্রেশনের জন্য তথ্য চাওয়া হবে। তারপর এটা জানুয়ারি মাসে বরাদ্দ পাওয়া কোম্পানিগুলোর মাঝে বণ্টন করা হবে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। এরপরই তাদের উপযুক্ত সেক্টরে চাকরি হবে বলে জানিয়েছেন তারা।     
শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের প্রকল্প পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম জানান, সরকার আগামী ৩ বছরে ৩ লাখ বেকার চাকরিপ্রত্যাশীকে ট্রেনিং দিয়ে কর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিবে। একই সাথে ২০২১ সালের মধ্যে ২০ লাখ তরুণ-তরুণীকে ট্রেনিং দিয়ে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করবে। আগামী ২০২১ সালের পর দেশে আর কোনো বেকার থাকবে না। এসব কাজ দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য কাজ করছে সরকার। শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের ইনচার্জ প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, চাকরিপ্রত্যাশীরা যে এত বেশিসংখ্যক সিভি দিতে আসবে তিনি কল্পনাও করতে পারেননি। হাইটেক পার্কের কনসালট্যান্ট মনির হোসেন জানান, তার উদ্যোগে জমা পড়া সিভিগুলো থেকে যাচাই-বাছাই করে ১৭ হাজারের একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তবে ডাটাবেজে কিছুটা ত্রুটি থাকায় আবারও একটি অনলাইন রেজিস্ট্রেশন নেয়া হবে। সর্বশেষ শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে বরাদ্দ নেয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে সিভি বণ্টন করা হবে। এখান থেকে পর্যায়ক্রমে উপযুক্ত প্রার্থীদের চাকরি দিবে বলে নিশ্চিত করেছে কোম্পানিগুলো। আইটি পার্কে ৫৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ওয়াটার স্পিড, ডিজিকন টেকনোলজিস, সাজ টেলিকম, স্পেকট্রাম ইঞ্জিনিয়ার্স কনসোর্টিয়াম লি., চাকলাদার কর্প, অংশ ইন্টারন্যাশনাল, জেএসআর আইটি, স্কলার টেক, বর্ণ আইটি, ডিসি আইটি, স্টেলার ডিজিটাল লিমিটেড, আম্বার আইটি লিমিটেড, অগ্নি সিস্টেমস লিমিটেড, দোহাটেক নিউ মিডিয়া, এমসিসি, অন এয়ার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, কাজী আইটি সেন্টার, ফিফোটেক, ই-জেনারেশন লিমিটেড, যশোর আইটি, প্রিনিয়ার ল্যাব, ভেনটেক, ইজি সল্যুউশন, হাসনাত ইন্টারন্যাশনালসহ আরও কিছু প্রতিষ্ঠান স্থান বরাদ্দ পেয়েছে। খুব শীঘ্রই সিভিগুলো হাতে পাবেন স্ব স্ব কোম্পানি। এদিকে ঢাকা সেন্টারনিক আইটি লিমিটেডের (ডিসি আইটি) নামে একটি প্রতিষ্ঠান গত সপ্তাহে প্রায় ১২০ জন লোক নিয়োগ দিয়েছে। ডিসি আইটি ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাইজুল ইসলাম খান বলেন, শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে এ কোম্পানি ২৫০০ বর্গফুট জায়গা নিয়েছে।
সফটওয়্যার, ডাটা ম্যানেজমেন্ট, অ্যাপস, ডিজিটাল মার্কেটিং, স্কুল ম্যানেজমেন্টসহ বিভিন্ন আইটি বিষয়ক কাজ সম্পাদন করবে কোম্পানিটি। যার কারণে নিয়োগ প্রাপ্ত লোকের ট্রেনিং চলছে। আরও লোক জানুয়ারিতে নিয়োগ দেয়া হবে। এদিকে বর্ণ আইটি নামে আর একটি প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য স্মৃতি রানী জানিয়েছেন, তাদের প্রতিষ্ঠানে কাজ চলছে। জানুয়ারিতেই নিয়োগ দেয়া হবে। চাকরিপ্রত্যাশীদের কয়েকজন জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী ১০ ডিসেম্বর আইটি পার্কের উদ্বোধন করেছেন। কিন্তু এখনও পুরোপুরি কাজ শুরু হয়নি। শুরু হলেই দ্রুত লোক নিয়োগ হয়ে যেতো। তারা সংশ্লিষ্ট বিভাগের কাছে সব প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম দ্রুত শুরু করার আহ্বান জানিয়েছেন।
Bookmark and Share প্রিন্ট প্রিভিও | পিছনে 
দেশজুড়ে
 মতামত সমূহ
পিছনে 
 আপনার মতামত লিখুন
English বাংলা
নাম:
ই-মেইল:
মন্তব্য :

Please enter the text shown in the image.
বর্তমান সংথ্যা
পুরানো সংথ্যা
Click to see Archive
Doshdik
 
 
 
Home | About Us | Advertisement | Feedback | Contact Us | Archive