Logo
 বর্ষ ১০ সংখ্যা ১৫ ২৬শে ভাদ্র, ১৪২৪ ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ 
প্রচ্ছদ কাহিনী/প্রতিবেদন
এই সময়/রাজনীতি
ডায়রি/ধারাবাহিক
স্বাস্থ্য
খেলা
প্রতিবেদন
সাহিত্য সংস্কৃতি
বিশ্লেষন
সাক্ষাৎকার
প্রবাসে
দেশজুড়ে
অনুষ্ঠান
ফিচার ও অন্যান্য
নিয়মিত বিভাগ
দেশের বাইরে
প্রতিবেদন
 
http://sadiatec.com/
ঈদুল আজহা উদযাপন ও কোরবানি  
যু ক্ত রা ষ্ট্র

রফিকুল ইসলাম আকাশ

লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক
লাব্বাইকা, লা শারিকা লাকা, লাব্বাইক
ইন্নাল্ হামদা, ওয়ান্ নিমাতাহ,
লাকা ওয়াল মুলক্
লা শারিকা লাকা।।
২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ রোজ শুক্রবার ত্যাগের মহিমায় মহিমান্বিত ঈদুল আজহা, যথাযোগ্য মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্যদিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে উদযাপিত হয়েছে। বাঙালি অধ্যুষিত এলাকা আরলিংটন ভার্জিনিয়ায় বাংলাদেশিদের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত বাইতুল মোকাররম জামে মসজিদে বিভিন্ন দেশের মুসলিম সম্প্রদায় তাদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেন।
২০১২ সাল থেকেই প্রবাসী বাংলাদেশিদের তত্ত্বাবধানে ২১১৬ সাউথ নেলসন স্ট্রিট, আরলিংটন, ভার্জিনিয়ায় মসজিদটিতে নামাজ, আল্ কোরান শিক্ষা, ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এ বছর বাইতুল মোকাররম জামে মসজিদে ঈদুল আজহার নামাজ যথাক্রমে সকাল ৮টা, সকাল ৯টা, সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হয়।
ঈমামতি করেন যথাক্রমে সকাল ৮টায় ইমাম এওয়াইস আহমেদ, সকাল ৯টায় হাফেজ আইমান শাহ এবং সকাল ১০টায় হাফেজ নাজির কাজী। ঈদুল আজহার নামাজ শেষে বিশ্ব মানবতার শান্তি কামনায় মোনাজাত করা হয়। ঈদের নামাজে প্রবাসী বাংলাদেশি ছাড়াও পৃথিবীর অন্য মুসলিমদের অংশগ্রহণ লক্ষণীয়, নামাজ শেষে সকলে কোলাকুলি ও সৌহার্দ্য বিনিময় করেন।
সরকারিভাবে অনুমতি থাকায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্থানে মুসলিম সম্প্রদায় কোরবানি দিয়ে থাকেন। বৃহত্তর ওয়াশিংটন ডিসিতে ৪ থেকে ৫ জায়গায় কোরবানি দেয়া হয় বলে জানা যায়। যারা কোরবানি দেয়ার নিয়ত করেন, তারা সাধারণত প্রথম জামাত আদায় করেই কোরবানির উদ্দেশে গরু-ছাগলের খামারে রওনা দিয়ে থাকেন। হযরত ইব্রাহীম (আ.) এর সময় থেকেই কোরবানির প্রচলন, বিশ্বের মুসলিম সম্প্রদায় যার যার সাধ্যমতো কোরবানি দিয়ে থাকেন। যেহেতু এ বছর বন্যায় বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং দেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠী মানবেতর জীবনযাপন করছে, তাই প্রবাসী বাংলাদেশিদের অনেকেই কোরবানি না দিয়ে বন্যার্তদের সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন।
ঈদ মানে আনন্দ। ঈদ মানে খুশির জোয়ার। ঈদ মানে একে অপরের প্রতি ভালোবাসা, ভ্রাতৃত্ববোধ, সহমর্মিতা ও সহযোগিতার অপূর্ব বন্ধন। এই আনন্দ ও উৎসব মুসলিম উম্মাহর জীবনে বয়ে আনে খুশির বন্যা, ভুলিয়ে দেয় সকল বিভেদ।
rafiqulislamakash@yahoo.it
Bookmark and Share প্রিন্ট প্রিভিও | পিছনে 
প্রবাসে
  • বাংলাদেশের দুস্থ শিশুদের জন্য জাপানে চাঁদা সংগ্রহ, প্রবাসীরা বিব্রত
  • দশ হাজার ডলার প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে
  •  মতামত সমূহ
    পিছনে 
     আপনার মতামত লিখুন
    English বাংলা
    নাম:
    ই-মেইল:
    মন্তব্য :

    Please enter the text shown in the image.
    বর্তমান সংথ্যা
    পুরানো সংথ্যা
    Click to see Archive
    Doshdik
     
     
     
    Home | About Us | Advertisement | Feedback | Contact Us | Archive